Monday, February 26, 2024

এটিই হচ্ছে ভারতের সবচেয়ে ধীরগতির ট্রেন, এর চেয়েও দৌড়ে আগে পৌঁছে যাওয়া যায় গন্তব্যে

#অফবিট নিউজ ডেস্কঃ ভারতীয় রেল হলো পুরো বিশ্বের মধ্যে দ্বিতীয় সর্ববৃহৎ রেল যোগাযোগ মাধ্যম। এই রেলের উপরেই নির্ভর করে আছে কোটি কোটি মানুষের জীবনযাত্রা। এমনকি এই রেলে চড়েই প্রতিদিন যাতায়াত করেন লক্ষ লক্ষ মানুষ। শুধু তাই নয়, ভারতীয় রেল হচ্ছে পুরো দুনিয়ার মধ্যে সবচেয়ে সস্তা পরিবহনের মধ্যে একটি।

আপনিও হয়তো ট্রেনে চড়েছেন। একজন ভারতীয় হওয়ার দরুন আপনিও হয়তো জানেন ভারতের সবচেয়ে দ্রুতগামী ট্রেন সম্বন্ধে। কিন্তু আপনি কি জানেন ভারতের সবচেয়ে ধীরগতিতে চলা ট্রেন কোনটি? জেনে অবাক হবেন যে এই ট্রেনটি এতোই ধীরে চলে যে এর চেয়েও দৌড়ে আগে গন্তব্যে পৌঁছে যাওয়া যায়।

এটিই হচ্ছে ভারতের সবচেয়ে ধীরগতির ট্রেনঃ 

ভারতের সবচেয়ে ধীরগতিতে চলা ট্রেনটির নাম হলো মেট্টুপালয়াম উটি নীলগিরি প্যাসেঞ্জার ট্রেন। এই ট্রেনটি পাহাড়ের ৩২৬ মিটার উচ্চতা থেকে ২২০৩ মিটার উচ্চতা পর্যন্ত চলাচল করে। এছাড়াও এ ট্রেনটি নীলগিরি মাউন্টেন রেলওয়ে স্টেশন থেকে যাত্রা শুরু করে সর্বোচ্চ ৫ ঘণ্টায় ৪৬ কিলোমিটার দূরত্ব পথ অতিক্রম করে। শুধু তাই নয়, নীলগিরি প্যাসেঞ্জার ট্রেনটি এতোই ধীরে চলে যে এরজন্য এই ট্রেনটির নাম ইউনেস্কোর ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ এ অন্তর্ভুক্ত করা রয়েছে।


Slowest train in India

বিভিন্ন মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, ট্রেনটি অত্যন্ত ধীর গতিতে চলার পরেও ট্রেনটি নিয়ে রয়েছে মানুষের মনে তুমুল আগ্রহ। আর এই জন্যই বছরের পর বছর এভাবেই চলছে ট্রেনটি। জানা গেছে, এ ট্রেনের যাত্রাপথে মোট ৪টি স্টেশন পড়ে। একই সঙ্গে ৪৬ কিলোমিটার যাত্রা পথে ১০০টিরও বেশি সেতু এবং সুরঙ্গ পার করে ট্রেনটি।

ভাড়া কতো এই ট্রেনের?

এই ট্রেনের প্রথম শ্রেণীর টিকিটের মূল্য ৫৪৫ টাকা। এবং দ্বিতীয় শ্রেণীর টিকিটের মূল্য ২৭০ টাকা। ট্রেনটি প্রতিদিন ৭:১০ এ ছেড়ে যায় মেট্টুপালায়ম স্টেশন থেকে এবং দুপুর ১২ টায় পৌঁছায় উটি স্টেশনে।

#আরো পড়ুনঃ ট্রেনের পিছনে ‘X’ চিহ্ন থাকে কেন? এর অর্থ কি? জানলে মাথা ভনভন করে ঘুরবে আপনার

আপনার জন্য
WhatsApp Logo