Saturday, July 20, 2024

ফল থেকে মূল সব কিছুই হয় বিক্রি, এই গাছের চাষ করে ভাগ্য ফিরেছে বহু মানুষের

আজকাল চাকরির যা বাজার তাই অনেকেই চাইছেন চাকরির আশা বাদ দিয়ে ব্যাবসা করতে। কিন্তু বর্তমানে ভালো কোন ব্যবসার আইডিয়া (business idea) না জানার কারণে ব্যবসাও করতে পারছেন না অনেকে। তাই আজ এই প্রতিবেদনে আমরা আপনাদেরকে বলবো একটি সেরা ব্যবসার কথা। যেই ব্যবসা করে আপনি মাসে বেশ ভালো পরিমাণে টাকা উপার্জন করতে পারবেন। চাইলে লক্ষ টাকাও উপার্জন করা সম্ভব সেখান থেকে। চলুন যেনে নেয়া যাক সেই ব্যাবসার সমন্ধে বিস্তারিত।

আমরা আপনাদেরকে বলছি একটি ঔষধি গাছের সমন্ধে। যেই গাছটির নাম হচ্ছে অশ্বগন্ধা (Ashwagandha)। ভারতবর্ষে এমন বহু মানুষ আছেন যারা কিনা এই অশ্বগন্ধা গাছের চাষাবাদ করছেন। এবং চাষ করে বেশ ভালো পরিমাণে টাকা উপার্জন করছেন মাস শেষে। তাই তো অশ্বগন্ধা চাষকে অর্থকরী ফসলও বলা হয়ে থাকে। কারণ এই গাছের ফল থেকে মূল সব কিছু বিক্রি হাওয়ার পাশাপাশি অশ্বগন্ধায় গাছে অনেক ঔষধি গুণ পাওয়া যায়, যা আমাদের শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। তাই করোনার সময় রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা বাড়াতে অশ্বগন্ধা গাছ ব্যবহার করার পরামর্শ দিয়েছিলেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। এছাড়াও এই গাছ প্যারালাইসিস এবং মেরুদণ্ডের সমস্যার মতো রোগের চিকিৎসার কাজে ব্যবহৃত হয়ে আসছে বহু বছর ধরে।

কিভাবে অশ্বগন্ধা চাষ করবেন?

WhatsApp Group Join Now
Telegram Group Join Now

Ashwagandha business idea

বাড়িতে অশ্বগন্ধার চাষ করবার জন্য প্রথমে আপনাকে এর চারা কিনে আনতে হবে। এরপর সেই চারা মাটিতে পুঁততে হবে আগস্ট থেকে সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যে। সাধারণত অশ্বগন্ধা ৩ থেকে ৪ মাসের মধ্যেই পূর্ণ চারাগাছে পরিনত হয়ে যায়। এবং গাছে ফল ধরে। তবে মনে রাখবেন অশ্বগন্ধা চাষ করার জন্য গোবর সারের ব্যবহার করবেন।

কতো টাকা আয় হবে?

অশ্বগন্ধা গাছের মোটা শিকড় বেশি দামে বিক্রি হয় সুরু শিকড় বিক্রি হয় কম দামে। এর ১ কেজি শিকড়ের দাম ১০০ থেকে ২০০ টাকা, এর মধ্যে আবার ফলের দাম আলাদা হিসেবে ধরা হয়। তবে আপনি চাইলে অশ্বগন্ধা গাছের চারাও বাজারে বিক্রি করতে পারবেন, এক্ষেত্রে একটি চারার দাম পড়বে ১৫ থেকে ২০ টাকা। আবার শোনা যায় কেজিতেও নাকি বিক্রি হয় অশ্বগন্ধা গাছের চারা।

আপনার জন্য
WhatsApp Logo