Friday, February 23, 2024

মেট্রোয় পাশের সিটের ব্যাগ সরিয়ে বসতে দিয়েছিলেন সহযাত্রীকে, হাই, হ্যালো থেকে কথা বার্তা পৌঁছল বিয়ে পর্যন্ত

Love-at-first-sight-in-Paris-metro-Paris-metro

 

#নিউজ ডেস্কঃ মানুষ যে কখন কিভাবে কারো প্রেমে পড়বে সেটা বোঝা মুশকিল। তরুণী অ্যান্ডি এবং তরুণ স্টিভেনের সাথেও তেমনি কিছু ঘটেছে। একই মেট্রোর সহযাত্রী ছিলেন ওই দু’জনে। কিন্তু অ্যান্ডি ছিলেন মেট্রোর এক পাশের সিটে এবং স্টিভেন ছিলেন অন্য পাশের ছিটে। এরপর নিজের পাশের সিটের একটি ব্যাগ সরিয়ে স্টিভেনকে সেই সিটে বসতে দিয়েছিলেন অ্যান্ডি।
 
 
 
ব্যাস! এখান থেকেই প্রেম হয়ে যায় দুজনের মধ্যে। হাই, হ্যালো থেকে কথা বার্তা পৌছে যায় বিয়ে পর্যন্ত। 
 
অ্যান্ডি এবং স্টিভেন দুজনেই আফ্রিকান বংশোদ্ভূত। কিন্তু তারা দু’জনেই থাকতেন প্যারিসে। যদিও ৩দিন বাদে প্যারিস ছেড়ে অন্যত্র কোথাও যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল অ্যান্ডির। তাই উঠেছিলেন মেট্রোতে। আর সেই মেট্রোতেই পরিচয় হয় অ্যান্ডির সাথে স্টিভেনের। স্টিভেন অন্য পাশের সিট থেকে ক্ষণে ক্ষণে তাকাচ্ছিলেন অ্যান্ডির দিকে।
 
 
উল্টোদিকে স্টিভেনের এ লুকোচুরি তাকানো বেশ ভালোই লাগছিল অ্যান্ডির। তাই নিজের পাশের সিটের একটি ব্যাগ সরিয়ে স্টিভেনকে সেই সিটে আমন্ত্রণ জানান তিনি। অ্যান্ডি যেন স্টিভেনের প্রতি দুর্বল হয়ে পড়েছিল।
 
 
হাই, হ্যালো থেকে শুরু হয় কথাবার্তা। বিনিময় হয় ফোন নম্বর। এরপর ফোনে ফোনে প্রেম শুরু হয় দু’জনের মধ্যে।
 
নেদারল্যান্ডসের আমস্টারডাম থেকে স্নাতকোত্তর কোর্স সম্পুর্ন করেছিলেন অ্যান্ডি। ইচ্ছে ছিল পড়াশোনা শেষ করে ইটালি, গ্রিস, মিশর এবং ভারত ঘুরে আসবেন তিনি। তবে স্টিভেনের সাথে আলাপ হাওয়ার পরে নিজ দেশে ঘুরতে গিয়েছিলেন অ্যান্ডি। কিন্তু ফোনে ফোনে স্টিভেনের সাথে যোগাযোগ ছিল অ্যান্ডির।
 
ফোনে ফোনে বাড়তে থাকে ভালোবাসা। শেষপর্যন্ত এ ভালোবাসা পরিনতি পায় বিয়েতে।
 
আপনার জন্য
WhatsApp Logo