Friday, December 1, 2023

নিজ শরীরেই সাপের দংশন! ডাইয়েরিতে কামড় খাওয়ার অনুভূতি লিখতে লিখতে ২৪ ঘন্টা পর মৃত্যু গবেষকের

The researcher died 24 hours after writing the feeling of snakebite in the diary

#নিউজ ডেস্কঃ কার্ল প্যাটারসন স্মিথ (Carl Patterson Smith) নামে একজন সাপ গবেষক ইচ্ছাকৃত ভাবে নিজের শরীরে সাপের কামড় খান। ওই সাপটি ছিল তার গবেষণার একটি অংশ। এরপর সাপের কামড় খেয়ে শরীরে বিষের কি প্রভাব পড়ে এবং কামড় খাওয়ার পর কেমন অনুভূতি হয় সেটাই ডাইরিতে লিখছিলেন তিনি। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত ডাইয়েরি লেখা অবস্থাতেই মৃত্যু হয় ওই গবেষকের। ঘটনাটি ঘটেছে, ১৯৫৭ সালের সেপ্টেম্বর (September) মাসে।

সংবাদ মাধ্যমের রিপোর্ট অনুযায়ী, এ ঘটনার বহু বছর কেটে গেলেও সম্প্রতি ওই গবেষকের বিষয়ে নতুন করে আবারো খবর প্রকাশিত হয়। যেই রিপোর্টে বলা হয়েছে, সেদিন কার্ল প্যাটারসন স্মিথ ৭৬ সেন্টিমিটার দৈর্ঘ্যের ওই সরীসৃপটি পরীক্ষা করার দায়িত্ব পান। সাপটি তার কাছে পাঠিয়েছিল ফিল্ড মিউজিয়াম অব ন্যাচারাল হিস্ট্রি গবেষক শিকাগোর লিঙ্কন পার্ক চিড়িয়াখানার একজন পরিচালক। সাপটি স্মিথের কাছে পাঠানোর কারণ সম্পর্কে বলা হয়েছিল, স্মিথ নাকি ছিলেন খুব ভালো একজন সাপ গবেষক।

এরপর স্মিথ সেই সাপটির কামড় খেয়ে তার ডাইয়েরিতে লেখেন, সাপটির মাথা উজ্জ্বল রঙের নকশায় ঢাকা ছিল এবং এর মাথার আকৃতি ছিল দক্ষিণ আফ্রিকার গেছো সাপের মতো, যেগুলো বুমস্ল্যাং (Boomslang) নামও পরিচিত। স্মিথের ঘর থেকে পাওয়া তার সেই ডাইয়েরির তথ্য অনুযায়ী, সাপটিকে নিজের কাছে আনলে সাপটি স্মিথের হাতের বুড়ো আঙ্গুলে কামড় দেয়। এরপর শরীরে বিষের প্রভাব ও অনুভূতির কথা লিখতে থাকেন স্মিথ। কিন্তু ২৪ ঘন্টা পরেই মৃত্যু হয় তার।

কিন্তু স্মিথ নিজের শরীরে সাপের বিষ নিলেন কেন। এর কোন কারণ খুঁজে পাওয়া যায়নি। চিড়িয়াখানার ওই পরিচালক শুধু মাত্র সাপটির বিষ অন্য প্রাণীর উপর পরিক্ষা করার জন্যই দিয়েছিলেন স্মিথকে।
আপনার জন্য
WhatsApp Logo